1. aleyaa31a16@gmail.com : Aleyaa 31 : Aleyaa 31
  2. sajedurrahmanshohan@gmail.com : Sajedur Shohan : Sajedur Shohan
  3. sejanahmed017@gmail.com : Sijan Sarkar : Sijan Sarkar
  4. sohan75632@gmail.com : Sohanur Rahman : Sohanur Rahman
  5. multicare.net@gmail.com : নর্থ এক্সপ্রেস :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বগুড়ায় জোরপূর্বক জমি খনন করে  বেদখলের চেষ্টা, প্রতিবাদে মানববন্ধন দুপচাঁচিয়া সদর ইউনিয়নের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা উল্লাপাড়ায় ভোটের মাঠে রেকর্ড গড়েছেন নারী নেত্রী সেলিনা মির্জা  দাশিয়ারছড়া ছিটমহল বাসীর সাথে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের মতবিনিময় দুপচাঁচিয়ায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ঠে যুবকের মৃত্যু মধুপুরে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু উল্লাপাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা দুপচাঁচিয়া উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিপ্লব বেসরকারিভাবে নির্বাচিত বগুড়ার শেরপুর পৌর মেয়র খোকার  সাময়িক বরখাস্তাদেশ স্থগিত  দুপচাঁচিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন 

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

আহসান হাবীব আরমান, জয়পুরহাট প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২৬ জুন, ২০২৩
  • ৪৩ বার পড়া হয়েছে

 

জয়পুরহাটে স্বামীকে হত্যা দায়ে স্ত্রীসহ ৪জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তাদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের কারাদ- দেওয়া হয়। সোমবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক নুর ইসলাম এ রায় দেন।
দণ্ড -প্রাপ্তরা হলেন, পাঁচবিবি উপজেলার কুটাহারা গ্রামের আবুল হোসেনের স্ত্রী ডলি বেগম, মৃত নিগমা উড়াওয়ের ছেলে সুরেন উড়াও, ধলু মন্ডলের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান ও দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের ফিরাজ উদ্দীনের ছেলে কাফা। এর মধ্যে ডলি বেগম পলাতক রয়েছেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার মটপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ফয়েজের ছেলে আবুল হোসেনের সাথে কুটাহারা গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে ডলির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আবুল হোসেন তার শশুরবাড়ীতে ঘর জামাই থাকতেন। সেসময় পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ চলে আসছিল। অন্যদিকে ডলি মামলার তিন আসামীর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এই অবৈধ সম্পর্ক দেখে পরিকল্পনা মোতাবেক ২০০১ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর রাতে আসামীরা শ্বাসরোধে আবুলকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরের দিন তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় ২৯ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা ফয়েজ উদ্দিন বাদী হয়ে পাঁচবিবি থানায় মামলা করেন।
আবুল হোসেনকে হত্যাকান্ডের বিষয়টি প্রতিভাত হয়ে স্ত্রী ডলি বেগমের সাথে আসামী কাফা, মোস্তাফিজুর ও সুরেন উড়াও এর সাথে অবৈধ সম্পর্ক ছিল। মাঝে মধ্যে উক্ত তিন জন আসামী কর্তৃক স্ত্রী ডলি বেগমের সাথে খারাপ কাজে মিলিত হয়।
এ বিষয়ে ডলি বেগম আতালতে দোষ স্বীকারোক্তি মূলক জবাবন্দীতে হত্যাকান্ডে লোমহর্ষক ঘটনার কঁতা স্বীকার করে সাজাপ্রাপ্ত ৩ জনের বিরুদ্ধে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দিতে ডলি বেগম বলেন, কাফা, মোস্তাফিজুর আবুল হোসেনের গলায় রশি লাগাইয়া টানাটানি করে হত্যাকান্ডের পর আসামী কাফা এবং মোস্তাফিজুর ডলি বেগমের সাথে অবৈধভাবে মেলামেশা করেন। পরবর্তীতে অনুশোচিত হইয়া আসামী ডলি বেগম নিজেকে জড়াইয়া স্বেচ্ছাপ্রনোদিতভাবে জবানবন্দী প্রদান করেছে। এরপর ডলি বেগম পরবর্তীতে গত ইং ১৭-১১-১৬ তাং হইতে অত্র পলাতক। এরপর মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালতের বিচারক স্ত্রী ডলি জহুরের অনুপস্থিতিতে আজ এ রায় দেন।
মামলার সরকারি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন এ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল পিপি। আর আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আফজাল হোসেন ও আবু কায়সার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© নর্থ এক্সপ্রেস নিউজ কর্তৃক সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট